Home / সারাদেশ / কে দেবে কৈফিয়ত, প্রতিদিন এত মৃত্যু

কে দেবে কৈফিয়ত, প্রতিদিন এত মৃত্যু

২৩ জানুয়ারি ছিল বাংলাদেশের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন। পদ্মা সেতুতে সেদিন সপ্তম স্প্যান বসানো হয়। এই উজ্জ্বল–চকচকে আনন্দের খবরের সঙ্গে আরেকটি গতানুগতিক, ‘সাধারণ’ খবরও সংবাদমাধ্যমে সেদিন এসেছিল; সেটি লক্ষ্মীপুরে সাতজনের মৃত্যুর। একই পরিবারের ছয়জনসহ সাতজন মানুষ সেদিন ট্রাকচাপায় মৃত্যুবরণ করে।

খবরটি অভিনব কিছু নয়। প্রতিদিনই সড়কে মৃত্যুর এমন খবর থাকে। পরিসংখ্যানের গড় হিসাবে কেবল আজকের দিনটিতেই বাংলাদেশে গড়ে ২০ জন মানুষ মারা যাচ্ছে শুধু সড়ক দুর্ঘটনায়।

এসব ঘূর্ণিতেই মনে থাকে না যে পদ্মা সেতুর নির্মাণ খরচ কয়েক দফায় বেড়ে যখন ৩০ হাজার কোটির ঘরে পৌঁছেছে, তখন এক বছরে সড়ক দুর্ঘটনায় আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ তার চেয়েও বেশি—৪০ হাজার কোটি টাকা। আমরা শুধু এক বছরেই সড়কে জীবন দিয়ে কিংবা পঙ্গু হয়ে, শুধে চলেছি একেকটি পদ্মা সেতুর প্রাক্কলিত সর্বশেষ ব্যয় থেকেও ১০ হাজার কোটি টাকা বেশি।

সাড়ে তিন বছরে ২৫ হাজার মৃত্যুর সঙ্গে আরও ৬৩ হাজার মানুষ শারীরিকভাবে হয়েছে ক্ষতিগ্রস্ত। এসবের মোট আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ জিডিপির ২ থেকে ৩ শতাংশ। সবচেয়ে বেশি মরছে শিশু, তরুণ, উপার্জনক্ষম অংশ। আর ঢাকায় শুধু যানজটেই রোজ ৫০ লাখ কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে, আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ বছরে ৩৭ হাজার কোটি টাকা।

বিবিধ ক্ষতির এসব পরিসংখ্যান আরও দীর্ঘ। কিন্তু ১ কিংবা ১ হাজার কিংবা ১০ হাজার মৃত্যুতেও যাদের ঘুমের কোনো ব্যাঘাত হয় না, কমতি পড়ে না হাসির রেখায়, ‘দায়িত্বপ্রাপ্ত’ ও ‘অধিক জনগুরুত্বপূর্ণ’ দায়িত্ব পালনে ব্যস্ত সেই রাজনীতিকদের এসব মামুলি পরিসংখ্যান দেখিয়ে কী হবে!

Check Also

ময়লা সরিষায় হচ্ছে সুরেশ তেল, ওজনে কম দিচ্ছে মদিনা

নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে ময়লাযুক্ত সরিষায় তৈরি হচ্ছে নামকরা সুরেশ সরিষার তেল। অন্যদিকে ওজনে কম …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Website Design, Developed & Hosted by